মুলাদীতে টিসিবি পন্য থেকে সুবিধা ভোগীরা বঞ্চিত

নভেম্বর ০২ ২০২২, ২০:২৭

নিজস্ব প্রতিবেদক ‍॥ মুলাদীতে সরকার নির্ধারিত কম মূল্যের টিসিবি পন্যে থেকে সুবিধাভোগী কার্ডধারীরা বঞ্চিত ও বিতরনে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দ্রব্য মূল্যের দাম বৃদ্ধি পেলে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশে সারাদেশে কমমূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য টিসিবি ডিলারের মাধ্যমে কার্ডধারী নিন্ম ও মধ্যেবৃদ্ধ পরিবারের মাঝে বিতরনের উদ্যেগ সরকার। সে লক্ষ্যে স্থানীয় জন প্রতিনিধির মাধ্যমে মুলাদী উপজেলায় ১০,৬৭৫ জন কার্ডধারীর মাঝে টিসিবি পন্য বিক্রয়ের জন্য নির্ধারিত ৩/৪ জন ডিলার এ মাল বিক্রয় করে থাকে।

জানাযায় সরকারী নিয়ম অনুযায়ী পন্য বিতরনের অন্তত ১ দিন আগে মাইকিং স্থানীয় জন প্রতিনিধি মাধ্যমে কার্ডধারীদের পন্য বিক্রয় সময় ও স্থান জানানোর কথা থাকলেও বন্টনের আগে এ ধরনের কোন প্রচারনা না থাকার ফলে অনেক সুবিধাভোগী এটা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ।

অপরদিগে নিয়োগকৃত ডিলাররা ট্রাক গাড়ীতে করে পন্য এনে বিক্রয় করার সময় কিছু লোকজনকে মাল দিয়ে প্রায় সময়ই বলে পন্য শেষ হয়ে গেছে এতে সুবিধা ভোগী অনেক কার্ডধারী শূণ্য হাতেই পন্য না নিয়ে ফেরত যায়। তবে সকল কার্ডধারী উপস্থিত না থাকার কারনে উপজেলার নির্দেশে গরীব মানুষ জনকে ভোটার আইডি কার্ডের মাধ্যমে পন্য দেয়ার নির্দেশ দেয়া হলে আইডি কার্ড নিয়ে কার্ডধারীদের চেয়ে অধিকাংশ লোক জমায়েত হয়ে পন্য কিনে নেয় তাতেও উপস্থিত কার্ডধারীরাও বঞ্চিত হয় বলে জানানো হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই অভিযোগ করে বলেন অনেক সুবিধা ভোগীর কার্ড দায়িত্ব প্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য নিকট বিধায় অনেকেই তাদের পন্য কিনতে পারছে না।

ডিলারের সাথে যোগাযোগ করে ঐ কার্ডের পন্য গুলো তারা নিজেরাই আতœসাধ করছে । গত ৩১ অক্টোবর সোমবার মুলাদী পৌর এলাকায় টিসিবি পন্য বিক্রয় কালে সর জমিনে গিয়ে দেখা যায় সন্ধায় সময় পন্য বিতরণ শুরু করা হয়ছে লোকজন টের পেয়ে কার্ড নিয়ে উপস্থিত হয়ে পন্য সংগ্রহ করে তবে অনেক কার্ডধারীকে বলা হয় পন্য শেষ হয়ে গিয়েছে এখন ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে অবশিষ্ট পন্য দেয়া হবে ফুল প্যাকেজ নাই। এ সময় মানুষ জনের সাথে খারাপ আচারন করতেও দেখা যায়।

রাতে পন্যে বিতরনের বিষয় পৌর সভার একজনকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান প্রচার প্রচারনার দায়িত্ব উপজেলার ঐ খানে গিয়ে খবর নেন ।

খোজ খবর নিয়ে জানা গেছে এ ধরনের চিত্র প্রত্যেক ইউনিয়নে- এ ব্যাপারে রুকাইয়া ষ্টোর ডিলার জিয়াউর রহমান শহীদের কাছে জানাতে চাইলে তিনি জানান জেলা পরিষদ থেকে পন্য দিতে বিলম্ব করায় পন্য বিতরনের সময় সন্ধা হয়ে হয়ছে। আমি ঢাকায় অবস্থান করছি । তাছাড়া পন্য বিতরনে কোন অনিয়ম হয়নি। পন্য বিতরনের সময় একজন ট্যাগ অফিসার থাকার কথা থাকলেও কোন ট্যাগ অফিসার কে দেখা যায়নি।

এ ব্যাপারে সদ্য যোগদানকৃত মুলাদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বকুল চন্দ্র কবিরাজ জানান রাতে পন্য ও অনিয়মের বিষয়টি আমার জানা নেই খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন....

আমাদের ফেসবুক পাতা

আজকের আবহাওয়া

পুরাতন সংবাদ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

এক্সক্লুসিভ আরও