বরিশালে কারামুক্ত হয়ে ফেরার পথে গাড়ি নিয়ে শোডাউন বিএনপি নেতার

নভেম্বর ২০ ২০২৩, ১৬:৫২

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: তফসিল প্রত্যাখ্যান করে গতকাল রোববার থেকে টানা দুই দিনের হরতাল ডেকেছে বিএনপি। চলমান কর্মসূচির মধ্যে ওই দিন বরিশাল নগরের সড়কে গাড়ি নিয়ে শোডাউন করেছেন সদ্য কারামুক্ত বরিশাল জেলা (দক্ষিণ) বিএনপির আহ্বায়ক ও সাবেক সংসদ সদস্য আবুল হোসেন খান।

হরতাল কর্মসূচি চলাকালীন রোববারের ওই ঘটনায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা মন্তব্য করেন নেতা-কর্মীরা। অভিযোগ উঠেছে, দলটির টানা কর্মসূচিতে দক্ষিণ জেলা বিএনপিসহ নগর ঘেঁষা সদর উপজেলার শীর্ষ নেতারা মাঠে নেই।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান জেলা (দক্ষিণ) বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক এমপি আবুল হোসেন খান। এ সময় সেখানে তাঁর সমর্থনের নেতা-কর্মীরা ছিলেন। তাঁরা তাঁকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করেন। পরে একটি সাদা গাড়িতে চড়ে শোভাযাত্রা নিয়ে নগরের সদর রোড থেকে গন্তব্যে যান তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কবির খান নামে বিএনপির এক কর্মী বলেন, ‘নির্বাচনের নমিনেশন নিয়ে হাজির আবুল ভাই।’ নুরুল ইসলাম নামে অপর এক কর্মী মন্তব্য করেন, ‘চলমান হরতালের মধ্যে একজন নেতার এভাবে গাড়িতে করে শোডাউন দেওয়া উচিত হয়নি।’

এ বিষয়ে বরিশাল জেলা (দক্ষিণ) বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক এমপি আবুল হোসেন খান জানান, তিনি ১ নভেম্বর অবরোধ চলাকালে সিঅ্যান্ডবি রোড থেকে গ্রেপ্তার হন। রোববার সন্ধ্যার আগে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান। তাঁর ধারণা ছিল পুলিশ আবার তাকে গ্রেপ্তার করবে। সে কারণে গাড়িতে করে স্থান ত্যাগ করার চেষ্টা করেন।

কিন্তু কারাগারের প্রধান ফটকে অসংখ্য নেতা-কর্মী জড়ো হন। মুক্ত হয়ে নিরাপদে যেতে গাড়িতে উঠেছেন। এ সময় সকল নেতা-কর্মীকে হাত তুলে অভিবাদন করেছেন মাত্র। যারা সমালোচনা করেন তারা তো মাঠে নেই, তিনি মাঠে আছেন।

এ ঘটনায় বরিশাল সদর উপজেলা বিএনপির ১ নম্বর সদস্য কেন্দ্রীয় নেতা আবু নাসের রহমাতুল্লাহ আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘হরতালের সময় গাড়িতে শোডাউন দেওয়া উচিত হয়নি। এটি দুঃখজনক ঘটনা। এখন তো ফুলের মালা নেওয়ারও সময় নেই। আবুল হোসেনের হেঁটেই যাওয়া উচিত ছিল।’

তিনি আক্ষেপ করে আরও বলেন, ‘সদর উপজেলা আহ্বায়ক এনায়েত হোসেন বাচ্চু, সদস্যসচিব রফিকুল ইসলামও মাঠে নামছে না। যদিও এটি বিএনপির ঘাঁটি। তাদের বলা হয়েছে কিন্তু শুনছেন না।’
এ বিষয়ে দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্যসচিব আবুল কালাম শাহিন বলেন, ‘তিনি দেখেছেন আবুল ভাই জেল গেট থেকে বেড়িয়ে সাদা একটি গাড়িতে চড়েছেন। হরতালের মধ্যে এটা এক ধরনের ভুল হতে পারে। জেল গেটে কিছু কর্মী গেছে। তবে সেখানে শোডাউন কিংবা ফুল দিয়ে বরণ করা হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সদর উপজেলা বিএনপির নেতাদের কার্যক্রম ধীর গতির। তাদের কাজ সন্তোষজনক নয়।’ এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিনের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন....

আমাদের ফেসবুক পাতা

আজকের আবহাওয়া

পুরাতন সংবাদ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

এক্সক্লুসিভ আরও